1. km.mintu.savar@gmail.com : admin :
  2. coderbruh@protonmail.com : demilation :
  3. editor@biplobiderbarta.com : editor :
  4. same@wpsupportte.com : same :
শিরোনাম:
বাংলাদেশ মাইম এসোসিয়েশন কর্তৃক আয়োজিত ঢাকার জিগাতলা ফাতেমা ল কলেজে মূকাভিনয় কর্মশালা অনুষ্ঠিত পাবনা ঈশ্বরদীর কৃতি সন্তান চিকিৎসক ডা. রায়ান সাদী নোবেল পুরস্কারের জন্য মনোনীত || উদ্বোধন হলো পণ্যের আলো ই-কমার্স ওয়েভসাইট বিশ্ববাজারে ধারাবাহিকভাবে পড়ছে অপরিশোধিত তেলের দর দলীয় সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়: মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম ইজিবাইক নিয়ে যেসব প্রশ্ন করে না গণমাধ্যম প্রয়োজন শুধু আত্মবিশ্বাস আন্তর্জাতিক কুরআন প্রতিযোগিতায় হাফেজ সালেহ আহমদ তাকরিমের তৃতীয় স্থান অর্জন || পারি ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্য শিক্ষা কার্যক্রম শুরু । হামলা- মামলা- খুন করে সরকার মানুষকে ভয় দেখাচ্ছে

মালিকসহ দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ক্ষতিপূরণ প্রদানের দাবী

Khairul Mamun Mintu
  • প্রকাশ : শনিবার, ১০ জুলাই, ২০২১
  • ৫৯০ বার পড়া হয়েছে

“নারায়ণগঞ্জ সেজান ফুড হত্যাকান্ডে” মালিকসহ দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি এবং আইএলও কনভেনশন আনুযায়ী ক্ষতিপূরণ প্রদানের দাবীতে আজ ১০ জুলাই ২০২১ শনিবার বিকাল ৫ টায় বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র সাভার আশুলিয়া আঞ্চলিক কমিটির উদ্যোগে আশুলিয়ার ইউনিক অফিসে প্রতিবাদ সভা অনুস্ঠিত হয়।

আঞ্চলিক কমিটির সভাপতি খাইরুল মামুন মিন্টু সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মন্জুরুল ইসলাম মন্জু পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন আশুলিয়ায় থানা রিক্সা ও ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আঃ মজিদ সাধারণ সম্পাদক আলতাফ হোসেন সহ সাধারন সম্পাদক মামুন দেওয়ান বাংলাদেশ বস্ত্র ও পোশাক শিল্প শ্রমিক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সরোয়ার হোসেন।

প্রতিবাদ সভায় নেতৃবৃন্দ বলেন কারখানা মালিক আবুল হাসেমের ঔদ্বত্যপূর্ন বক্তব্যের ক্ষোভ ও নিন্দা জ্ঞাপন করেন। ফায়ার সার্ভিসের ঘোষনা অনুসারে কারখানায় অগ্নিনির্বাপন ব্যবস্থা ছিলনা। আরো প্রতিয়মান হয় যে বিল্ডিং সেফটি, ফায়ার সেফটি ও ইলেক্ট্রিক্যাল সেফটির কোন ব্যবস্থা ছিলনা। এমনকি পুরো কারখানাটি পরিবেশ সম্মত নয় বিধায় সামগ্রিকভাবে কর্মক্ষেত্রে পেশাগত- স্বাস্থ্য নিরাপত্তা বিধান কোনভাবে মানা হয়নি। এর পরেও যখন অাগুন জ্বলছে, মানুষ পুরছে এবং বাঁচার তাগিদে শ্রমিকরা কারখানা থেকে বের হওয়ার জন্য চিৎকার করছিল তখন তাদেরকে কারখানা থেকে বের হতে না দিয়ে উপরন্তু তালাবন্ধ করে আটকে রেখে আগুনে পুরিয়ে হত্যা করা হয়। ইতিপূর্বে রানাপ্লাজা, তাজরীন ফ্যাসন, স্প্যাকট্রাম ও বাঁশখালীসহ শতাধিক ঘটনায় হাজার হাজার শ্রমিককে হত্যা করার পরও হত্যাকারীদের কোন শাস্তি হয়নি। এমনই ধিকৃত ও নিন্দনীয় বিচারহীনতার সংস্কৃতির পূণরাবৃত্তিই “নারায়ণগঞ্জ সেজান ফুড হত্যাকান্ড”। নেতৃবৃন্দ আরো বলেন যে, বারবার শ্রমিক হত্যা শিল্প বিকাশ ও জাতীয় অর্থনীতির জন্য চরম হুমকি। এমতাবস্থায় দেশে সকল শিল্প কারখানায় জীবন ও জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর

আমাদের পেজ