1. km.mintu.savar@gmail.com : admin :
  2. editor@biplobiderbarta.com : editor :
শিরোনাম:
দেশে করোনায় মৃত্যু বাড়ল, ৫১ জনের মৃত্যু, শনাক্ত হয়েছে এক হাজার ৯০১ জন। দেশে আগস্টের চেয়ে সেপ্টেম্বরে ডেঙ্গু রোগী বাড়ছে পোশাক রপ্তানিতে ভিয়েতনামের চেয়ে আবার এগিয়ে বাংলাদেশ প্রণোদনা ঋণ ৩৬ কিস্তিতে পরিশোধের সুবিধা চায় বিজিএমইএ পোশাক খাতের ১৬ শতাংশ শ্রমিকের কম মজুরি পাওয়ার শঙ্কায় হাসেম ফুড কারখানায় অগ্নিকাণ্ডে মালিকসহ দায়ীদের শাস্তি ও ক্ষতিপূরণের দাবি শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরী ২১ হাজার টাকা নির্ধারণসহ দশ দফা দাবীতে সাংবাদিক সম্মেলন শক্তি ফাউন্ডেশনের উদ্দ্যোগে পাবনা- কাশিনাথপুরে করোনা সচেতনতায়  মাস্ক বিতরণ: হাসেম ফুড কারখানায় আরও একটি খুলিসহ কঙ্কাল ও হাড় উদ্ধার গার্মেন্ট শ্রমিকদের সুরক্ষায় ৫০ ইউনিয়নের যৌথ বিবৃতি

আকস্মিক ঘোষণায় কারখানা খুলে দেয়ার প্রতিবাদ

বিপ্লবীদের বার্তা
  • প্রকাশ : শনিবার, ৩১ জুলাই, ২০২১
  • ১৭৯ বার পড়া হয়েছে

মালিকদের আবদারে শ্রমিকের বেতন কর্তন এবং সীমাহীন হয়রানির রাস্তা খুলে দিয়েছে সরকার

আকস্মিক ঘোষণায় কারখানা খুলে দিয়ে শ্রমিকদের সীমাহীন দুর্ভোগে ফেলে দেয়ার প্রতিবাদ জানিয়েছে গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র। সংগঠনের সভাপতি শ্রমিকনেতা মন্টু ঘোষ এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক শ্রমিকনেতা ইকবাল হোসেন আজ ৩১ জুলাই ২০২১, শনিবার এক বিবৃতিতে মালিকদের আবদারে সরকারের পশ্চাদপসরণ এর তীব্র নিন্দা জানান।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, গণপরিবহন বন্ধ রেখে শ্রমিকদের কাজে ফেরার নির্দেশ দিয়ে তাদের ব্যাপক আর্থিক ক্ষতি ও সীমাহীন হয়রানীর মধ্যে ফেলা হয়েছে। যার ক্ষতিপূরণ মালিকপক্ষ ও সরকার কে দিতে হবে। তারা বলেন, গতকাল গণমাধ্যমে কারখানা খোলার সিদ্ধান্ত প্রচার করা হয়েছে। টেলিফোনে শ্রমিকদের ১ আগস্ট কাজে যোগদানের কঠোর নির্দেশ দিয়ে, অন্যথায় চাকুরিচ্যুতির হুমকি দেয়া হয়ে হয়েছে। আজ বলা হচ্ছে গ্রামে থাকা শ্রমিকদের এখনই কাজে যোগদান বাধ্যতামূলক নয়। নেতৃবৃন্দ বলেন, এসব শ্রমিকদের সাথে তামাশা,মিথ্যাচার ভিন্ন আর কিছু নয়।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, মালিকপক্ষ মূলত সংক্রমণ প্রতিরোধে চলমান কঠোর বিধিনিষেধে শ্রমিকদের বেতন কর্তন করার চক্রান্তে লিপ্ত। নেতৃবৃন্দ বিবৃতিতে দাবি জানান, গণপরিবহন চালু না হওয়া পর্যন্ত শ্রমিকদের কাজে ফিরতে বাধ্য করা যাবে না। কাজে যোগদানে অপারগ শ্রমিকের বেতন কর্তন করা কিংবা চাকুরি জীবন ক্ষতিগ্রস্থ করা চলবে না। যে শ্রমিকরা চার-পাঁচগুণ অর্থ ব্যয় করে, পায়ে হেটে, রিকশা-ভ্যান চেপে, ভয়াবহ পরিস্থিতি মোকাবেলা করে কর্মস্থলে ফিরবে তাদের ক্ষতিপূরণ এবং বিধিনিষেধ চলাকালীন কাজ করালে শ্রমিকদের ঝুঁকি ভাতা দিতে হবে। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে শ্রমিকদের পূর্ণ টিকা প্রদানের দাবি জানান। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, দাবির অন্যথা হলে শ্রমিকরা রাস্তায় নেমে আন্দোলন করতে বাধ্য হবে।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর

আমাদের পেজ