1. km.mintu.savar@gmail.com : admin :
  2. editor@biplobiderbarta.com : editor :
শিরোনাম:
সংবর্ধনার মাধ্যমে সহকর্মীদের বিদায় জানালেন বেড়া মডেল থানার ওসি অরবিন্দ রায় । অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টি–টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের প্রথম জয় ১১ আগস্ট থেকে সবকিছুই খোলা থাকবে। তবে তা সীমিত পরিসরে। কয় পয়সা দাম গরিবের জীবনের, ক্ষেত্রবিশেষে মূল্যহীন বিধিনিষেধ চলাকালে শ্রমিকদের মাসে ৩ হাজার টাকা ঝুঁকি ভাতা দেওয়ার দাবি করোনায় ২৩৫ জনের মৃত্যু, রোগী শনাক্ত হয়েছে ১৫ হাজার ৭৭৬ জন। গার্মেন্ট শ্রমিকদের সীমাহীন দুর্ভোগের দায় নেবে কে? আরও ২৪৬ জনের মৃত্যু হয়েছে, নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে ১৫ হাজার ৯৮৯ জন। করোনায় ২৩১ মৃত্যু, শনাক্ত হয়েছে ১৪ হাজার ৮৪৪ জন রাস্তায় পড়ে থাকা ফিডের বস্তা ফিরিয়ে দিল আমিনপুর থানার পুলিশ |

রুপগঞ্জে অগ্নিকান্ডে ৫২ জন শ্রমিক মৃত্যুতে সিপিবি’র ক্ষোভ ও নিন্দা

Khairul Mamun Mintu
  • প্রকাশ : শুক্রবার, ৯ জুলাই, ২০২১
  • ৬১ বার পড়া হয়েছে

রুপগঞ্জে অগ্নিকান্ডে ৫২ জন শ্রমিক মৃত্যুতে সিপিবি’র ক্ষোভ ও নিন্দা
আইএলও কনভেনশন ১২১ ধারা অনুযায়ি নিহত, আহত ও নিখোঁজদের ক্ষতিপূরণ দাবি

নারায়ণগঞ্জ জেলার রুপগঞ্জে কর্ণগোপ এলাকায় সজীব গ্রুপের সেজান জুস কারখানায় উৎপাদন চলাকালে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ৫২ জন শ্রমিকের মৃত্যুতে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) সভাপতি কমরেড মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক কমরেড মোহম্মদ শাহ আলম আজ ৯ জুলাই, শুক্রবার এক বিবৃতিতে তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা জানিয়েছেন। নেতৃবৃন্দ শ্রমিকদের মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন।

নেতৃবৃন্দ বিক্ষুব্ধ প্রতিাক্রয়া জানিয়ে বলেন, কঠোর লকডাউনের মধ্যে গার্মেন্ট ছাড়া অন্য কারখানা বন্ধ থাকার ঘোষণার মধ্যে কীভাবে জুস কারখানা চালু ছিল এবং সেখানে এক হাজারের বেশি শ্রমিক স্বাস্থ্য ও অগ্নি নিরাপত্তা ছাড়া কর্মরত ছিল সে বিষয়টি খতিয়ে দেখা জরুরি। ফায়ার সার্ভিসের বর্ণিত তথ্য বিবেচনায় নিয়ে নেতৃবৃন্দ বলেন, সেজান কারখানায় কর্মপরিবেশ সবসময় খুবই ঝুঁকিপূর্ণ ছিল। দাহ্যপদার্থ পরিপূর্ণ এ কারখানায় উপযুক্ত অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থা ছিল না। নেতৃবৃন্দ এটিকে কাঠামোগত হত্যাকান্ড বলে আখ্যায়িত করেন।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ এ হত্যাকান্ডের জন্য মালিকপক্ষ, সরকারের আইন শৃংখলাবাহিনী, কারখানা পরিদর্শক অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের দায়ি করেন। নেতৃবৃন্দ অনতিবিলম্বে সেজান জুস কারখানার শ্রমিকদের হত্যাকান্ডের জন্য দায়িদের গ্রেফতারের দাবি জানান।

নেতৃবৃন্দ অসংখ্য শ্রমিক এখনো নিখোঁজ থাকায় উদ্বেগ প্রকাশ করে তাদের দ্রæত খোঁজ দেয়ার দাবি জানান। সেইসাথে আহতদের উপযুক্ত চিকিৎসার দাবি জানান। নেতৃবৃন্দ, নিহত, আহত ও নিখোঁজ শ্রমিকদের পরিবারকে আইএলও কনভেনশন ১২১ ধারা অনুযায়ি ক্ষতিপূরণ দেয়ার দাবি জানান।

নেতৃবৃন্দ নিহত শ্রমিকদের পরিবারের প্রতি আন্তরিক সহমর্মিতা জানান এবং এ হত্যাকান্ডের ন্যায়বিচারের দাবিতে তাদের পাশে দাঁড়ানোর অঙ্গীকার করেন।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর

আমাদের পেজ