1. km.mintu.savar@gmail.com : admin :
  2. editor@biplobiderbarta.com : editor :
শিরোনাম:
দেশে করোনায় মৃত্যু বাড়ল, ৫১ জনের মৃত্যু, শনাক্ত হয়েছে এক হাজার ৯০১ জন। দেশে আগস্টের চেয়ে সেপ্টেম্বরে ডেঙ্গু রোগী বাড়ছে পোশাক রপ্তানিতে ভিয়েতনামের চেয়ে আবার এগিয়ে বাংলাদেশ প্রণোদনা ঋণ ৩৬ কিস্তিতে পরিশোধের সুবিধা চায় বিজিএমইএ পোশাক খাতের ১৬ শতাংশ শ্রমিকের কম মজুরি পাওয়ার শঙ্কায় হাসেম ফুড কারখানায় অগ্নিকাণ্ডে মালিকসহ দায়ীদের শাস্তি ও ক্ষতিপূরণের দাবি শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরী ২১ হাজার টাকা নির্ধারণসহ দশ দফা দাবীতে সাংবাদিক সম্মেলন শক্তি ফাউন্ডেশনের উদ্দ্যোগে পাবনা- কাশিনাথপুরে করোনা সচেতনতায়  মাস্ক বিতরণ: হাসেম ফুড কারখানায় আরও একটি খুলিসহ কঙ্কাল ও হাড় উদ্ধার গার্মেন্ট শ্রমিকদের সুরক্ষায় ৫০ ইউনিয়নের যৌথ বিবৃতি

আন্তর্জাতিক নারী দিবসের ইতিহাস ও তাৎপর্য

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশ : সোমবার, ৮ মার্চ, ২০২১
  • ২৯১ বার পড়া হয়েছে

১৯০৯ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি। আমেরিকায় প্রথমবার আন্তর্জাতিক নারী দিবস উদযাপন করা হয়েছিল। অবশ্য এর পিছনে একটা কারণ ছিল। বছর খানেক আগে অর্থাৎ ১৯০৮ সালে আমেরিকার সোশ্যালিস্ট পার্টির তরফে ধর্মঘট ডাকা হয়। লক্ষ্য ছিল, আমেরিকার বস্ত্রশিল্পের সঙ্গে যুক্ত মহিলা-শ্রমিকরা যেন যথাযোগ্য সম্মান পান। অন্য দিকে, রাশিয়ার মহিলা-শ্রমিকরাও ২৮ ফেব্রুয়ারি নারী দিবস উদযাপন শুরু করেন।

১৯১০ সালের মার্চে অস্ট্রিয়া, ডেনমার্ক, জার্মানি-সহ নানা দেশে প্রথমবার নারী দিবস পালন করা হয়েছিল। নারীর কাজের অধিকার, বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণ এবং কাজের বৈষম্য সহ নানা ইস্যুতে সরব হন লক্ষ লক্ষ মানুষ।

১৯১১ সালে জার্মানির ক্লারা জেটকিনের (Clara Zetkin) নেতৃত্বে একটা বড় মাত্রা পায় এই আন্দোলন। ধীরে ধীরে নারীদের অধিকার ও প্রাপ্য আদায়ের এই আন্দোলন গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। এই সময় ১৭টি দেশের ১০০ মহিলাকে নিয়ে একটি কনফারেন্সও হয়।

১৯১৩ সালে ফেব্রুয়ারির বদলে ৮ মার্চ তারিখ নির্ধারিত হয়। এর পর থেকে ৮ মার্চকে আন্তর্জাতিক নারী দিবস হিসেবে বেছে নেওয়া হয়। পরের দিকে, আনুষ্ঠানিকভাবে রাষ্ট্রসংঘও সিলমোহর দেয়। ১৯৭৫ সালের ৮ মার্চ দিনটিকে রাষ্ট্রসংঘের তরফে আন্তর্জাতিক নারী দিবস হিসেবে ঘোষণা করা হয়। সেই থেকে শুরু

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর

আমাদের পেজ