1. km.mintu.savar@gmail.com : admin :
  2. editor@biplobiderbarta.com : editor :
শিরোনাম:
দেশে করোনায় মৃত্যু বাড়ল, ৫১ জনের মৃত্যু, শনাক্ত হয়েছে এক হাজার ৯০১ জন। দেশে আগস্টের চেয়ে সেপ্টেম্বরে ডেঙ্গু রোগী বাড়ছে পোশাক রপ্তানিতে ভিয়েতনামের চেয়ে আবার এগিয়ে বাংলাদেশ প্রণোদনা ঋণ ৩৬ কিস্তিতে পরিশোধের সুবিধা চায় বিজিএমইএ পোশাক খাতের ১৬ শতাংশ শ্রমিকের কম মজুরি পাওয়ার শঙ্কায় হাসেম ফুড কারখানায় অগ্নিকাণ্ডে মালিকসহ দায়ীদের শাস্তি ও ক্ষতিপূরণের দাবি শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরী ২১ হাজার টাকা নির্ধারণসহ দশ দফা দাবীতে সাংবাদিক সম্মেলন শক্তি ফাউন্ডেশনের উদ্দ্যোগে পাবনা- কাশিনাথপুরে করোনা সচেতনতায়  মাস্ক বিতরণ: হাসেম ফুড কারখানায় আরও একটি খুলিসহ কঙ্কাল ও হাড় উদ্ধার গার্মেন্ট শ্রমিকদের সুরক্ষায় ৫০ ইউনিয়নের যৌথ বিবৃতি

আশুলিয়ায় দুটি কারখানায় বকেয়া বেতনের দাবীতে শ্রমিকদের বিক্ষোভ।

বিপ্লবীদের বার্তা রিপোর্ট :
  • প্রকাশ : বুধবার, ২৯ এপ্রিল, ২০২০
  • ৩৪৬ বার পড়া হয়েছে

ঢাকা রপ্তানী প্রক্রিয়াকরণ এলাকার (ডিইপিজেড) একটি বিদেশী তৈরী পোশাক কারখানার শ্রমিক বকেয়া চার মাসের বেতনের দাবীতে বিক্ষোভ করেছে। তারা ব্যানার নিয়ে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায়।

বুধবার ডিইপিজেডের পুরাত জোনে অবস্থিত ইতিলির মালিকানাধীন ‘এ-ওয়ান (বিডি) লিমিটেড’ পোশাক কারখানার শ্রমিকরা বিক্ষোভ দেখায়।

বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা জানান, কারখানাটিতে প্রায় ১১শ’ শ্রমিক কাজ করে। তাদের ৪মাসের বেতন বকেয়া পরেছে। একাধিকবার শ্রমিকরা বকেয়া বেতন পরিশোধের জন্য বেপজা কর্তৃপক্ষকে অবহিত করলে তারা শ্রমিকদের শান্তনা দিয়ে ফিরেয়ে দেয়। পরে কোন উপায় না পেয়ে শ্রমিকরা নাস্তায় নামতে বাধ্য হয়েছে।

কারখানাটির সোয়েটার শাখার শ্রমিক সোনিয়া আক্তার জানান, চার মাসের বকেয়া বেতন-ভাতা না পেয়ে মানবেতর জীবনযাপন করতে হচ্ছে শ্রমিকদের। মহামারী করোনা ভাইরাসের মধ্যে বেতন না পেয়ে টাকার অভাবে না খেয়ে কোনরকম বেঁচে আছি। মালিক রয়েছে বিদেশে করোনা ভাইরাসের কারনে লোকশানের মুখে প্রতিষ্ঠানটি বেতন-ভাতা পরিষোধ করতে পারবেন না বলে কর্তৃপক্ষের দাবী। তাই শ্রমিকরা বাধ্য হয়ে রাস্তায় নেমেছে।

গামের্ন্টস শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সাংগঠনিক সম্পাদক খায়রুল মামুন মিন্টু বলেন, শ্রমিকদের বকেয়া বেতন-ভাতার আদায়ের জন্য আমরা সংশ্লিষ্ঠ বিভিন্ন দপ্তরে আলোচনা করে যাচ্ছি। কিন্তু কোন পক্ষ থেকে সাড়া পাচ্ছি না। বেপজা কর্তৃপক্ষ কারখানা বিক্রি করে বকেয়া পরিষোধের আশ্বাস দিলেও তা সময়ের ব্যাপার। কিন্তু ততদিন শ্রমিকরা কিভাবে বাঁচবে। তাদেরতো এখনই টাকা দরকার। বিষয়টি নিয়ে বেপজা ও বিজিএমইএতেও আলোচনা হচ্ছে বলেন তিনি।

বাংলাদেশ রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেপজা) মহাব্যবস্থাপক আব্দুস সোবাহান সাংবাদিকদের জানায়, শ্রমিকদের বকেয়া বেতন-ভাতা প্ররিষোধের জন্য কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে সমাধানের চেষ্টা করা হচ্ছে। খুব শিঘ্রই তাদের পাওনাদি পরিষোধ করা হবে বলেও জানান তিনি।

এপ্রসঙ্গে জানতে এ-ওয়ান (বিডি) লিমিটেড কারখানার মহাব্যবস্থাপক আলমগীর হোসেন পলাশের মুঠফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করলেও সে ফোন রিসিভ করেননি।

আশুলিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ রিজাউল হক বলেন, শ্রমিকরা বিক্ষোভ নিয়ে সড়কে আসলে পুলিশ তাদের বুঝিয়ে সরিয়ে দিয়েছে। বিষয়টি নিয়ে বেপজা কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে সমাধানের চেষ্টা করা হবে।

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর

আমাদের পেজ