1. km.mintu.savar@gmail.com : admin :
  2. editor@biplobiderbarta.com : editor :
শিরোনাম:
সংবর্ধনার মাধ্যমে সহকর্মীদের বিদায় জানালেন বেড়া মডেল থানার ওসি অরবিন্দ রায় । অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টি–টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের প্রথম জয় ১১ আগস্ট থেকে সবকিছুই খোলা থাকবে। তবে তা সীমিত পরিসরে। কয় পয়সা দাম গরিবের জীবনের, ক্ষেত্রবিশেষে মূল্যহীন বিধিনিষেধ চলাকালে শ্রমিকদের মাসে ৩ হাজার টাকা ঝুঁকি ভাতা দেওয়ার দাবি করোনায় ২৩৫ জনের মৃত্যু, রোগী শনাক্ত হয়েছে ১৫ হাজার ৭৭৬ জন। গার্মেন্ট শ্রমিকদের সীমাহীন দুর্ভোগের দায় নেবে কে? আরও ২৪৬ জনের মৃত্যু হয়েছে, নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে ১৫ হাজার ৯৮৯ জন। করোনায় ২৩১ মৃত্যু, শনাক্ত হয়েছে ১৪ হাজার ৮৪৪ জন রাস্তায় পড়ে থাকা ফিডের বস্তা ফিরিয়ে দিল আমিনপুর থানার পুলিশ |

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জিতে নিয়েছে বাংলাদেশ

Km Mintu
  • প্রকাশ : রবিবার, ৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২০
  • ৫৪৭ বার পড়া হয়েছে

বোলিংয়ে ছিল আগুন। ফিল্ডিংয়ে বারুদ। ব্যাটিংয়ে সংগ্রাম। খাদের কিনারা থেকে ঘুরে দাঁড়ানোর চোয়ালবদ্ধ প্রতিজ্ঞা। এমন উজ্জীবিত দলটির সামনে দাঁড়াতে পারেনি ভারত অনূর্ধ্ব-১৯। তাদের হারিয়ে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জিতে নিয়েছে বাংলাদেশ।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশের আগুনে বোলিংয়ের সামনে পড়ে ভারত। শরিফুল ইসলাম ও তানজিম হাসান শুরু করেন মেডেন দিয়ে। ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের খেলান একের পর এক ডট বল।

কন্ডিশনে পেসারদের জন্য সুবিধা বুঝতে পেরে একাদশে একটি পরিবর্তন আনে বাংলাদেশ। হাসান মুরাদের জায়গায় একাদশে ফেরা পেস বোলিং অলরাউন্ডার অভিষেক দাস আক্রমণে এসেই দলকে এনে দেন ‘ব্রেক থ্রু’। পয়েন্টে ক্যাচ দেন দিব্যানশ সাক্সেনা।

দৃঢ় ব্যাটিংয়ে শুরুর কঠিন সময় পার করে দেন জয়সাওয়াল ও তিলক ভার্মা। দুই বাঁহাতি ব্যাটসম্যানের ব্যাটে ধীরে ধীরে বাড়ে রানের গতি। তবে থিতু হওয়ার পরও তাদের ডানা মেলতে দেননি বাংলাদেশের বোলাররা। নিখুঁত লাইন লেংথে বল করে বারবরই ধরে রেখেছিলেন চাপটা।

রান তিন অঙ্ক ছোঁয়ার পর ভাঙে ভারতের প্রতিরোধ। তানজিমের বলে সীমানায় ভার্মার চমৎকার ক্যাচ মুঠোয় জমান শরিফুল। ভাঙে ৯৪ রানের জুটি।

এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারায় ভারত। দলটি সবশেষ ৯ উইকেট হারায় ৭৪ রানে; ২১ রানে শেষ সাতটি।

প্রিয়ম গার্গকে দ্রুত থামান রকিবুল হাসান। ভারতের শেষ ছয় ব্যাটসম্যানের কেউ যেতে পারেননি দুই অঙ্কে। শেষ আট ব্যাটসম্যানের মধ্যে দুই অঙ্কে যাওয়া একমাত্র ব্যাটসম্যান ধ্রুব জুরেল ফিরেন রান আউট হয়ে।

এক প্রান্ত আগলে রাখা জয়সাওয়ালের সঙ্গে শুরু থেকে জমে উঠেছিল শরিফুলের দ্বৈরথ। বাঁহাতি বোলারের দারুণ কিছু ডেলিভারি একটুর জন্য ভারতীয় ওপেনারের ব্যাটের কানা নেয়নি। শেষ হাসি হাসিন শরিফুলই। থামান জয়সাওয়ালের পথ চলা।

১২১ বলে ৮ চার ও এক ছক্কায় ১২১ রান করে ফিরেন জয়সাওয়াল। তার বিদায়ের পর বেশিদূর এগোয়নি ভারতের ইনিংস।

৪০ রানে ৩ উইকেট নেন অভিষেক। দারুণ বোলিংয়ে দুটি করে উইকেট নেন তানজিম ও শরিফুল।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ভারত অনূর্ধ্ব-১৯ দল: ৪৭.২ ওভারে ১৭৭ (জয়সাওয়াল ৮৮, সাক্সেনা ২, ভার্মা ৩৮, গার্গ ৭, জুরেল ২২, বীর ০, আনকোলেকার ৩, বিষ্ণুই ২, সুশান্ত ৩, তিয়াগি ০, আকাশ ১*; শরিফুল ১০-১-৩১-২, তানজিম ৮.২-২-২৮-২, অভিষেক ৯-০-৪০-৩, শামীম ৬-০-৩৬-০, রকিবুল ১০-১-২৯-১, হৃদয় ৪-০-১২-০)

বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল: (লক্ষ্য ৪৬ ওভারে ১৭০) ৪২.১ ওভারে ১৭০/৭ (পারভেজ ৪৭, তানজিদ ১৭, মাহমুদুল ৮, হৃদয় ০, শাহাদাত ১, আকবর ৪৩*, শামীম ৭, অভিষেক ৫, রকিবুল ৯*; কার্তিক ১০-২-৩৩-০, সুশান্ত ৭-০-২৫-২, আকাশ ৮-১-৩৩-০, বিষ্ণুই ১০-৩-৩০-৪, আনকোলেকার ৪.১-০-২২-০, জয়সওয়াল ৩-০-১৫-১)

শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর

আমাদের পেজ